March 1, 2024

TV Bangla New Agency

Just another WordPress site

করোনা আবহে খুঁটি পুজো মহিলা পরিচালিত পাঁশকুড়া প্রতাপপুর সার্বজনীনের

নিজস্ব সংবাদদাতা পূর্ব মেদিনীপুর:- করোনা আবহের মাঝে মহিলা পরিচালিত পূর্ব মেদিনীপুর জেলার পাঁশকুড়া পৌরসভার অন্তর্গত প্রতাপপুর সার্ব্বজনীন দুর্গাপুজা কমিটির খুঁটি পুজো। ধীরে ধীরে করোনার শক্তি ক্রমশ ক্ষীণ হয়ে আসছে, হয়তো ধীরে ধীরে মানব সভ্যতার মধ্য থেকে একদিন বিলীন হয়ে আবার পুরোনো ছন্দে ফিরবে নতুন পৃথিবী, তবে তা কবে কেউ জানে না। তবু কি থেমে থাকে ভবিষ্যত ? প্রতিটা বাঙালির মনেপ্রানে একটাই চিন্তা পুজোর নির্ঘণ্ট বেজে গিয়েছে, তবে সেই পুজোমন্ডপ, থিম প্রতিমা দেখার ভিড় আদৌ কি জমবে প্রতিটা প্যান্ডেলে ? তবে ত্রিনয়নী রুদ্ররুপিনী দশভুজা দেবী দুর্গতিনাশিনী আসছেন মর্তে। তাঁরই নিদর্শন যেন এই খুঁটি পুজোর প্রস্তুতিপর্ব। করোনার আবহের মধ্যেই পূর্ব মেদিনীপুর জেলার পাঁশকুড়ার প্রতাপপুরে পুজোর শুভারম্ভ হল খুঁটিপুজোর মাধ্যমে। বিগত বছর ধরে মহিলা পরিচালিত এই পুজো শ্রেষ্ঠত্বের শিরোপা পেয়ে আসছে, দীর্ঘ বছর ধরে হয়ে আসা এই পুজো এ বছর ৫৪ তম বছরে পদার্পণ করে, সেকারনে শঙ্খ, ঢাক ও কাঁসর বাজিয়ে পুজো প্যান্ডেলের খুঁটি পুজোয় নারকেল ফাটিয়ে উদ্বোধন করেন পাঁশকুড়া পৌরসভার চেয়ারম্যান তথা পুজো কমিটির নতুন সভাপতি নন্দ মিশ্র। প্রতাপুরের এই পুজো পাঁশকুড়া ব্লকের মধ্যে পুজো প্যান্ডেল সহ প্রতিমা প্রত্যেক বছর শ্রেষ্ঠত্বের শিরোপা পেয়ে এসেছে , বিগত বছর গুলিতে পাঁশকুড়া পৌরসভার পক্ষ থেকে পুজো পরিক্রমা হলে সেখানে কোনো বারে প্রথম বা কোনো বছর দ্বিতীয় পুরস্কারে পুরস্কিত হয়ে আসে প্রতাপপুর সার্ব্বজনীন দুর্গাপুজো কমিটি। মহিলা পরিচালিত এই দুর্গা পুজোয় প্যান্ডেল ও প্রতিমা দেখতে প্রতি বছরই বহু প্রতিমা দর্শনার্থীরা ভিড় জমায়। পাশাপাশি ওই মন্ডপে অষ্টমীর দিন পুজো দেওয়া এবং পুষ্পাঞ্জলি দিতে হাজার হাজার ভক্তের ভিড় হয়। পাশাপাশি এই পুজোকে ঘিরে স্থানীয় মানুষের উৎসাহ উদ্দীপনা থাকে চোখে পড়ার মতো। কিন্তু এবছর তা বাধ সাধল কোভিড ১৯, কারণ প্রতি বছর পুজোট বাজেট থাকে ৮ থেকে ৯ লক্ষ্য টাকা, কিন্তু এবছর পুজো হলেও তাঁর বাজেট নেমে হল ২ লক্ষ্য। গত কয়েক বছর ধরে মহিলাদের দ্বারা পরিচালিত হওয়া এই পুজো করোনা আবহের কারনে নিজের কাঁধে সমস্ত পুজোর দায়িত্ব তুলে নিলেন পৌরসভার চেয়ারম্যান নন্দবাবু, এবং নতুন সম্পাদক হিসেবে তপন কুমার সেন। যদিও অন্যান্য বছরের তুলনায় এবছর পুজোর সময়সীমা কিছুটা পিছিয়ে রয়েছে,আশ্বীন পেরিয়ে কার্তিক মাসে পড়ে বাঙালির উৎসব দুর্গাপুজো। তবু এখন থেকেই তাঁর প্রস্তুতিপর্ব প্রায় শুরু করে ফেললেন পুজো কমিটির কর্তারা। পুরুষ তান্ত্রিক সমাজে নারীদের অধিকার কোন অংশে কম নয়, সাড়ম্বরে দুর্গাপুজো করতে পারে মহিলারাও, তারই প্রত্যক্ষ উদাহরণ পাওয়া গেল এই সার্ব্বজনীন দুর্গাপূজার খুঁটি পূজাতে। তবে পূজা কমিটি জানায় মানুষের আনন্দের সাথে সাথে মানুষের শারীরিক সুস্থতা এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেই আমরা পূজার্চনার ব্যবস্থা করেছি। এবং পূজামন্ডপে স্যানিটাইজেশনেরও ব্যবস্থা থাকবে, এবং ঠাকুর দর্শনার্থীদের মধ্যে দূরত্ব যাতে বজায় থাকে সেদিকে নজর রাখবে পূজা কমিটি । করোনা কামড়ে বিশ্বজুড়ে মানুষ গৃহবন্দী, বাইরে বের হলেই বারে বারে এক মারন আতঙ্ক যেন গ্রাস করে প্রতিটা মানুষকে,তবু মা আসছেন মর্তে, তারি আনন্দে দানা বাধতে শুরু করেছে সফল মানুষের মনে।